সোমবার, ১৬ মে ২০২২, ০৯:৩১ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
শিরোনাম :
কুমারখালী উপজেলা ও পৌর বিএনপির প্রতীকী অনশন পালন কুষ্টিয়ায় পণ্যে পাটজাতদ্রব্য ব্যবহার না করার অপরাধে জরিমানা কিশোরগঞ্জে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে ২৫টি পরিবারের ৮৩টি বসতঘর পুড়ে ভস্মীভ’ত কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় বিএনপির প্রতিকী অনশন পালিত কুষ্টিয়ায় র‌্যাবের অভিযানে গাঁজাসহ ২ জন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার বিজ্ঞান শিক্ষার প্রসার ঘটিয়ে জনগনকে জনসম্পদে পরিনত করতে হবে : ব্যারিস্টার সেলিম আলতাফ জর্জ, এমপি ফতুল্লায় গার্মেন্টস শ্রমিকদের সড়ক অবরোধ পুলিশের লাঠিচার্জ, টিয়ারশেল নিক্ষেপ রাজনৈতিক ছত্রছায়ায় থাকায় তালিকা হচ্ছে না নিয়ন্ত্রণহীন অপরাধীরা সাংবাদিকদের মধ্যে আর কোনো বিভক্তি থাকবে না : রুহুল আমিন গাজী কুষ্টিয়ায় তিন দিনেও খোঁজ মেলেনি অপহৃত মাদ্রাসা ছাত্রের, ফোনে মুক্তিপণ দাবি

অবশেষে দেশে ফিরলেন মুরাদ হাসান

ঢাকা অফিস / ৪২ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : সোমবার, ১৬ মে ২০২২, ০৯:৩১ অপরাহ্ন

কানাডায় ও দুবাইয়ে ঢুকতে পারলেননা

তথ্য প্রতিমন্ত্রীর পদ হারানো মুরাদ হাসান কানাডায় ঢুকতে পারেননি। এরপর দুবাইয়ে ঢোকার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন। অবশেষে গতকাল রোববার বিকেল ৪টা ৫৫মিনিটে এমিরেটসের একটি ফ্লাইটে ঢাকায় শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নামেন তিনি। বিমানবন্দরে দায়িত্বরত আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর একজন কর্মকর্তা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। সবার চোখ ফাঁকি দিয়ে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের ডোমেস্টিক টার্মিনালের সাধারণ যাত্রীদের গেট দিয়ে বের হয়ে গেছেন ঘুরেফিরে দেশে ফেরা সাবেক তথ্য প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসান। আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) দায়িত্বশীল একটি সূত্র জানায়, মুরাদ হাসান বিমানবন্দরের ভিআইপি গেটের সামনে এলেও সাংবাদিকরা অপেক্ষা করছেন দেখে ভেতরে চলে যান এবং বিমানবন্দরের ভেতর দিয়ে ডোমেস্টিক টার্মিনালে যান। সেখানে বাইরে তার জন্য হোন্ডা সিআরভি ব্র্যান্ডের একটি গাড়ি প্রস্তুত ছিল। দেশে ফেরার সময় তার পরনে ছিল জিন্সের নীল রঙের প্যান্ট, গায়ে ছিল জ্যাকেট। ওই জ্যাকেট দিয়ে তাকে মাথা ও মুখ ঢেকে রাখতে দেখা যায়। ঢাকা থেকে কানাডা যাওয়ার সময়ও তিনি মুখ ঢেকে রেখেছিলেন। এদিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগ নেত্রীদের নিয়ে কটূ মন্তব্যের অভিযোগে তার বিরুদ্ধে শাহবাগ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন ছাত্রলীগের এক নেতা। এদিকে খালেদা জিয়ার নাতনিকে নিয়ে মন্তব্যের জেরে গতকাল রোববার ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলার আবেদন করেছেন এক আইনজীবী। এ ছাড়াও মুরাদ হাসানের বিরুদ্ধে সিলেট, রাজশাহীসহ কয়েকটি জেলায় মামলার আবেদন করা হয়েছে। আরও কয়েকটি জেলায় তার নামে মামলার আবেদন করা হয়েছে বলে জানা গেছে। নারীর প্রতি বিদ্বেষপূর্ণ, অশালীন ও অবমাননাকর বক্তব্যের জেরে গত মঙ্গলবার তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রীর পদ ছাড়তে বাধ্য হন মুরাদ হাসান। এরপর বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে কানাডার উদ্দেশে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ত্যাগ করেন। তবে করোনা সংক্রমণের মধ্যে কানাডার নিয়ম অনুযায়ী প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দেখাতে ব্যর্থ হওয়ায় তিনি সে দেশে প্রবেশ করতে পারেননি বলে কূটনৈতিক সূত্রগুলো জানিয়েছিল। অন্যদিকে ইমিগ্রেশনের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন কর্মকর্তা বলেন, ‘রিফিউজড প্যাসেঞ্জারদের এয়ারলাইন কর্তৃপক্ষ পাসপোর্টসহ আমাদের কাছে বুঝিয়ে দেয়। উনাকেও (মুরাদ) হস্তান্তর করা হয়েছে।’ মুরাদ হাসানের মোবাইল ফোনটি বিকাল থেকে খোলা পাওয়া যাচ্ছে। তবে সেই নম্বরে ফোন করলেও তিনি তা কল ধরছেন না। তিনি বিমানবন্দরের অভ্যন্তরীণ টার্মিনাল দিয়ে বেরিয়ে যান বলে পুলিশের বিশেষ শাখার এক কর্মকর্তা গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন। মুরাদের যাওয়া কিংবা ফিরে আসার বিষয়ে তার পরিবার কিংবা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত জানা যায়নি। মুরাদ হাসান কূটনৈতিক পাসপোর্ট নিয়ে রওনা হলেও দুবাইয়ে তার ভিসা ছিল না বলে তাকে ফিরে আসতে হচ্ছে বলে এর আগে মন্ত্রিসভার একজন সদস্য নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানিয়েছিলেন। তথ্য প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব এবং আওয়ামী লীগের পদ হারালেও মুরাদ হাসান এখনও সংসদ সদস্য (এমপি) রয়েছেন। টেলিফোনে এক চিত্রনায়িকাকে অশালীন মন্তব্য এবং হুমকি দেওয়ার অডিও ফাঁস হওয়ার পর গত সোমবার মুরাদকে মন্ত্রিসভা থেকে বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেদিন থেকে অগোচরে থাকা মুরাদ পরদিন পদত্যাগপত্র পাঠিয়ে দিলে তা গৃহীত হয়। একই দিনে জামালপুর আওয়ামী লীগের পদ থেকেও তাকে সরানো হয়। এরপর মুরাদের কোনো খোঁজ না মিললেও বৃহস্পতিবার রাতে তিনি ঢাকার শাহজালাল বিমানবন্দরে উপস্থিত হন। তখন জানা যায়, কানাডা যেতে এমিরেটসের ফ্লাইটে উঠছেন তিনি। মধ্যরাতে ফ্লাইটটি ঢাকা ছেড়ে যায়। কিন্তু টরেন্টোর পিয়ারসন বিমানবন্দরে মুরাদকে ‘আটকে দেওয়া হয়’ বলে কানাডা প্রবাসী একজন সাংবাদিক খবর দেন। কানাডা থেকে প্রকাশিত বাংলা ভাষার নিউজ পোর্টাল নতুন দেশের সম্পাদক শওগাত আলী সাগর এক প্রতিবেদনে লেখেন, ‘সংসদ সদস্য ডা. মুরাদ হাসানকে কানাডায় ঢুকতে দেয়নি দেশটির বর্ডার সার্ভিসেস এজেন্সি’। টরন্টোর পিয়ারসন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে তাকে ফিরিয়ে দেওয়া হয় বলে জানা গেছে। কানাডায় বসবাসরত তার ঘনিষ্ঠ একাধিক সূত্র ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন। তবে কানাডার সরকারি সূত্র থেকে এই ব্যাপারে কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি। তথ্য প্রতিমন্ত্রী থাকাকালে মুরাদ বেশ কয়েকবার কানাডা সফর করে। গত সেপ্টেম্বরেই তিনি সপ্তাহখানেক ওই দেশে ছিলেন। এবার কানাডায় যাতে মুরাদকে ঢুকতে দেওয়া না হয়, সেজন্য প্রবাসীদের একটি অংশ সক্রিয় ছিল বলে জানান ‘লুটেরা বিরোধী মঞ্চ, কানাডা’র সংগঠক ও ইয়র্ক ইউনিভার্সিটির পিএইচডির গবেষক মঞ্জুরে খোদা টরিক। তিনি বাংলাদেশের একটি প্রথম সারির নিউজ পোর্টালকে বলেন, ‘কানাডায় খুব নিয়মতান্ত্রিকভাবে সব হয়। আমরা এখানে কানাডার বর্ডার সার্ভিসেস এজেন্সির ওয়েবসাইটে গিয়ে ইমেইল করেছি। মেইলে লিখেছি মুরাদ হাসানের অপকীর্তির কথা, আর সঙ্গে সংবাদ ও ভিডিও ক্লিপ জুড়ে দিয়েছি। ১৭১টি ইমেইল নাকি গিয়েছে, আমাদেরকে জানিয়েছেন এখানে কর্মরত দুই বাংলাদেশী সাংবাদিক। তাকে কানাডায় ঢুকতে না দেওয়ার ব্যাপারে আমার বিশ্বাস এটি কাজে দিয়েছে। অবশ্য ঢাকায় কানাডীয় হাই কমিশনের একটি সূত্রের বরাত দিয়ে চ্যানেল টোয়েন্টিফোরের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, করোনা ভাইরাস মহামারির মধ্যে যেসব কাগজপত্র থাকা প্রয়োজন ছিল, তা না থাকায় মুরাদ হাসানকে বিমানবন্দরে আটকে দেওয়া হয়। টিকার সনদ ও কোভিড নমুনা পরীক্ষা ছাড়া ঢাকার বিমানবন্দর মুরাদ কী করে পার হলেন- গতকাল রোববার শাহজালাল বিমানবন্দরে এক সাংবাদিক সম্মেলন পেয়ে সেই প্রশ্ন করা হয়েছিল বেসামরিক বিমান চলাচল প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলীকে। জবাবে তিনি বলেন, বিমানবন্দরে স্বাস্থ্য বিভাগের পৃথক ডেস্ক রয়েছে। টিকার সনদের বিষয়টি তারা পরীক্ষা করে থাকে। সিভিল এভিয়েশন কর্তৃপক্ষ (বেবিচক) তাদের বসার জায়গা করে দিয়েছে মাত্র। এ বিষয়ে জানতে হলে স্বাস্থ্য বিভাগের সঙ্গে যোগাযোগ করার পরামর্শ দেন প্রতিমন্ত্রী। একই প্রশ্নের জবাবে বেবিচকের নির্বাহী পরিচালক গ্রুপ ক্যাপ্টেন তৌহিদুল আহসান বলেন, এ বিষয়ে তিনি ‘খোঁজখবর’ করবেন। জামালপুরের আওয়ামী লীগ নেতা মতিয়ার রহমান তালুকদারের ছেলে মুরাদ ২০০৮ সালের নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের টিকেটে জামালপুর-৪ (সরিষাবাড়ী) আসনে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। এরপর ২০১৮ সালে তিনি দ্বিতীয়বার সংসদ সদস্য হন। ২০১৯ সালে মন্ত্রিসভায় প্রথমে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পেয়েছিলেন মুরাদ হাসান। কয়েকমাস পরে তাকে সরিয়ে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল। সম্প্রতি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নাতনিকে নিয়ে বর্ণ ও নারীর প্রতি বিদ্বেষমূলক মন্তব্য করে সমালোচনায় পড়েন মুরাদ হাসান। এর কয়েকদিনের মধ্যে চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহির সঙ্গে তার অশালীন আচরণের একটি অডিও ফেইসবুকে ছড়িয়ে পড়ে। পাশাপাশি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগ নেত্রীদের নিয়ে মুরাদের অশালীন বক্তব্যের অডিও ছড়িয়ে পড়ে। এসব নিয়ে চাপে পড়ে মন্ত্রিত্ব ও দলীয় পদ হারাতে হয় মুরাদকে। ঢাকাসহ বিভিন্ন জেলায় মামলার আবেদন : বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ও যুক্তরাজ্যে পলাতক সাজাপ্রাপ্ত আসামী তারেক রহমানের মেয়েকে নিয়ে ফেসবুক লাইভে কুরুচিপূর্ণ, অশ্লীল বক্তব্যের অভিযোগে বভিন্ন জেলায় মামলার আবেদন করা হয়েছে। আসামী করা হয়েছে ইউটিউবার মহিউদ্দিন হেলাল নাহিদকেও। তথ্য প্রতিমন্ত্রীর পদ হারানো মুরাদ হাসানের বিরুদ্ধে ঢাকা ও রাজশাহীর পর এবার ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলার আবেদন করা হয়েছে চট্টগ্রাম, সিলেট ও খুলনায়। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ও যুক্তরাজ্যে পলাতক সাজাপ্রাপ্ত আসামী তারেক রহমানের মেয়ে সম্পর্কে ফেসবুক লাইভে কুরুচিপূর্ণ, অশ্লীল বক্তব্যের অভিযোগ তোলা হয়েছে এসব আবেদনে। আসামী করা হয়েছে ইউটিউবার মহিউদ্দিন হেলাল নাহিদকেও। চট্টগ্রামে বিভাগীয় সাইবার ক্রাইম ট্রাইব্যুনালের বিচারক এস কে এম তোফায়েল হাসানের আদালতে রোববার দুপুরে আবেদন করেন জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম চট্টগ্রাম ইউনিটের সভাপতি এ এস এম বদরুল আনোয়ার। আইনজীবী এনামুল হক বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে জিয়া পরিবারকে নিয়ে অশ্লীল ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য নারী সমাজকে নিয়ে মানহানিকর ও অপমানজনক মন্তব্যের অভিযোগে মামলার আবেদন করা হয়েছে। মামলার শুনানি হয়েছে, আদালত এটি আদেশের জন্য রেখেছে। সিলেটের সাইবার ট্রাইব্যুনালে দুপুরে মুরাদ ও নাহিদের বিরুদ্ধে মামলার আবেদন করেন জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম সিলেটের সাংগঠনিক সম্পাদক তানভীর আক্তার খান। বিচারক আবুল কাশেম আবেদনটি গ্রহণ করে আগামি ১৫ ডিসেম্বর শুনানির তারিখ নির্ধারণ করেছেন। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি ও বিএনপি নেতা এ টি এম ফয়েজ উদ্দিন। তিনি বলেন, ‘আদালত মামলার এজাহার গ্রহণ করে ১৫ ডিসেম্বর আদেশের তারিখ নির্ধারণ করেছেন। মামলায় মুরাদ ছাড়াও নাহিদ রেইনসকে অভিযুক্ত করা হয়েছে।’ ফয়েজ বলেন, ‘ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ২৫, ২৯, ৩১ ও ৩৫ ধারায় মামলার আবেদন হয়েছে। আমরা আশা করছি, আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে আসামীদের বিরুদ্ধে ওয়ারেন্ট ইস্যু করবে।’ তিনি আরও বলেন, ‘এই মুরাদ হাসান বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বিভিন্নভাবে কুরুচিপূর্ণ বক্তব্য রেখেছেন। ইতোমধ্যে তিনি সংবিধানে বিসমিল্লাহ থাকবে না, রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম থাকবে না এ রকম ন্যক্করজনক বক্তব্য রেখেছেন। সর্বোপরি জিয়াউর রহমানের পরিবার, আমাদের দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া এবং তারেক রহমানকে নিয়ে অনেক কুরুচিপূর্ণ বক্তব্য রেখেছেন। এর আগে রোববার সকালে মুরাদ ও নাহিদের বিরুদ্ধে মামলার আবেদন হয়েছে ঢাকা ও রাজশাহীতে। একাধিকবার ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবি জানানোর পর এবার সেই আইনেই মামলার আবেদন করেছে বিএনপি। ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনাল আদালতে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলার আবেদন করেন ঢাকা বারের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ওমর ফারুক ফারুকী। বিচারক ছুটিতে থাকায় সোমবার শুনানির তারিখ রাখা হয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর ....

এক ক্লিকে বিভাগের খবর