সোমবার, ২১ জুন ২০২১, ০৪:১৩ পূর্বাহ্ন

দিনাজপুরের বাজার গুলোতে লিচু কিনতে এসে হতাশ ক্রেতারা

দিনাজপুর প্রতিনিধি / ১৬ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : সোমবার, ২১ জুন ২০২১, ০৪:১৩ পূর্বাহ্ন

দিনাজপুর জেলা লিচুর জন্য বিখ্যাত। এ জেলায় বাংলাদেশের সেরা লিচু উৎপন্ন হয়। এ জেলায় বিভিন্ন জাতের লিচু উৎপন্ন হয়, যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো- মাদ্রাজী, বোম্বাই, বেদানা ও চায়না-৩ কিন্তু এ বছর ফলন বিপর্যয়ে লিচুচাষিদের হতাশার পর এখন বাজারে লিচু কিনতে গিয়ে হতাশ হয়ে ফিরছেন ক্রেতারা। লিচুর রাজধানী হিসেবে পরিচিত দিনাজপুর জেলায় বাজারে লিচু উঠলেও গত বছরের তুলনায় এবার দাম দ্বিগুণ। গত বছরের তুলনায় এবার দিনাজপুরে লিচুর ফলন প্রায় ৭০ শতাংশ কম হওয়ায় আকাশচুম্বী দামে লিচুর স্বাদ নিতে পারছেন না নিম্ন ও মধ্যবিত্ত আয়ের মানুষেরা। তাছাড়া অন্যান্য বছরের তুলনায় এবার লিচুর স্বাদ ও মানও কম বলে জানিয়েছেন ক্রেতারা। গত বুধবার সরেজমিনে বাজারে গিয়ে দেখা যায়, বাজারে লিচু উঠেছে, তবে অন্যান্য বারের তুলনায় লিচুর আমদানি বেশ কম। বাজারের অনেক দোকানই লিচুর অভাবে ফাঁকা পড়ে আছে। বাজারে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বেদানা জাতের লিচুর দাম চাওয়া হচ্ছে প্রতি শত প্রকারভেদে ৫০০ থেকে ৭০০ টাকার ওপরে এবং মাদ্রাজি জাতের লিচুর দাম চাওয়া হচ্ছে প্রতি শত প্রকারভেদে ২০০ থেকে ৩০০ টাকার ওপরে। গত বছর বেদানা জাতের লিচু বিক্রি হয় প্রকারভেদে ৩০০ থেকে ৫০০ টাকার মধ্যে এবং মাদ্রাজি জাতের লিচু বিক্রি হয় ১০০ থেকে ১৫০ টাকার মধ্যে (প্রতি শত)। পরিপক্ব চায়না-থ্রিসহ অন্যান্য জাতের লিচু এখনো তেমন বাজারে ওঠেনি। আর বোম্বাই জাতের লিচুর ফলন এবার একেবারেই হয়নি। দামের ব্যাপারে জিজ্ঞাসা করা হলে একজন লিচু ব্যবসায়ী বলেন, ‘বাগানগুলোতে এবার লিচু নেই। বাগান মালিকরা যে স্বল্প পরিমাণ লিচু বাজারে নিয়ে আসছে, প্রতিযোগিতার মুখে তা বেশি দামে কিনতে হচ্ছে। এ কারণেই বেশি দামে কিনে সামান্য লাভ রেখে বেশি দামে বিক্রি করতে হচ্ছে তাদের।’ তিনি স্বীকার করেন, দাম বেশি হওয়ার কারণে অনেকেই লিচু না কিনে ফিরে যাচ্ছেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর ....

এক ক্লিকে বিভাগের খবর