মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২২, ০১:৫৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
শিরোনাম :
ভিসির পদত্যাগের দাবিতে উত্তাল শাবি : বাসভবন ঘেরাও নিষেধাজ্ঞা প্রসঙ্গে মার্কিন দূত-মানবাধিকার লঙ্ঘন ও নির্যাতনের জবাবদিহিতায় যুক্তরাষ্ট্র প্রতিশ্রুতিবদ্ধ কুষ্টিয়ায় নিখোজ যুবকের ভাসমান মরদেহ উদ্ধার কুষ্টিয়ায় ৯ পুলিশ কর্মকর্তার রদবদল সন্ত্রাসবাদকে না বলুন এই স্লোগানে কুষ্টিয়ায় উগ্রবাদ প্রতিরোধে পুলিশের মতবিনিময় সভা অক্সফামের রিপোর্ট : করোনায় শীর্ষ ১০ ধনীর সম্পদ দ্বিগুণ হয়েছে, মরছে গরিব, বাড়ছে বৈষম্য কুষ্টিয়ার মিরপুরে অবাধে ফসলি জমির মাটি কেটে বিক্রি সরকারি চিনিকলে বিক্রির তিনগুণ লোকসান কুষ্টিয়ায় গত চার মাস পর করোনায় আক্রান্ত হয়ে একজনের মৃত্যু চলতি অধিবেশনেই পাস হচ্ছে নির্বাচন কমিশন আইন

চুয়াডাঙ্গায় দংশন করা সাপ মেরে সাথে নিয়েই হাসপাতালে!

নিজস্ব প্রতিবেদক / ১২৫ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২২, ০১:৫৭ অপরাহ্ন

দংশন করা সাপ ধরে পিটিয়ে মেরে নিজেই হাসপাতালে হাজির হন চুয়াডাঙার এক ব্যক্তি। বর্তমানে তিনি চুয়াডাঙা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা. সৌরভ হোসেন জানান চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলার কামালপুর গ্রামে সাপের কামড়ে বজলুল আহমেদ (৪০) নামের ঐ ব্যাক্তি হাসপাতালে আসেন শনিবার ভোরে। তিনি অতিদ্রত তার শরীরে সাপের বিষ বিধ্বংসী ইনজেকশন পুশ করতে বলেন। তিনি দাবি করেন তাকে বিষধর সাপ কেটেছে। কি ধরনের সাপ তাকে কেটেছে, কখন কেটেছে এসব প্রশ্ন তুলতেই তিনি কালো রঙের একটি কাপড়ের ব্যাগ থেকে একটি মৃত সাপ বের করে মেলে ধরেন এবং জানান এই সাপ তাকে কেটেছে। ঘটনার আকস্মিকতায় হতবাক হয়ে পড়েন উপস্থিত সবাই। তাকে দ্রুত হাসপাতালে ভর্তি করে নেয়া হয়। চিকিৎসক ডা. সৌরভ হোসেন জানান পুরো দিন তাকে ঘুম পাড়িয়ে রাখা হয়। ঘটনা জানতে পেরে শনিবার সন্ধ্যায় সাংবাদিকরা হাসপাতালে এলে তাকে সাংবাদিকদের মুখোমুখি করা হয়। বজলুল আহমেদ সাংবাদিকদের জানান শুক্রবার (৩০ এপ্রিল) রাত সাড়ে ১১টার দিকে বাড়ির পাশে রাস্তার ধারে দাঁড়িয়ে মোবাইল ফোনে কথা বলছিলেন। এসময় তার পায়ে একপি সাপ ছোবল দেয়। পায়ের কয়েক জায়গায় সাপটি কামড় দেয়। জায়গাটি নির্জন ছিল ফলে কারো সহায়তার আশা না করে তিনি নিজেই সাপটিকে পিটিয়ে মেরে বাসায় গিয়ে পা ভাল করে বেঁধে প্রথমে যান আলমডাঙা উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে। তিনি জানান সেখানে প্রথমে তাকে চিকিৎসার উদ্যোগ নেয়া হয়। পরে সাপটি দেখানো হলে সেখানকার চিকিৎসরা তাকে আরো উনতœ চিকিৎসার জন্য চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে যাওয়ার পরামর্শ দেন। কারন সাপটি বিষধর। পরে তিনি চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে আসেন। তখন প্রায় সকাল হয়ে যায়। বজলুল আহমেদ উপজেলার কামালপুর গ্রামের মক্তব পাড়ার আসাবুল হকের ছেলে। চিকিৎসক ডা. সৌরভ হোসেন বলেন, যে সাপটি বজলুলকে কামড় দেয় নাম গোখরা। তিনি জানান তাকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দিয়ে হাসপাতালে ভর্তি রাখা হয়েছে। বর্তমানে তার শারীরিক অব¯’া ভালো। বজলুলের সাথে রয়েছেন তার স্ত্রী দোলন। তিনি জানান বজলুল একটু জেদি ও রসিক প্রকৃতির মানুষ। সাপটি তাকে কামড় দেয়ার পর তিনি জেদ ধরেই সাপটিকে পিটিয়ে মারেন। একটু রসিক হবার কারনে তিনি সাপ সাথে করেই হাসপাতালে যাবেন বলে জানান। তবে বজলুল বলেন চিকিৎসকরা যাতে জাত সাপ তাকে কেটেছে এটা বুঝতে পারেন সেজন্য সাপটি সাথে রাখ দরকার।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর ....

এক ক্লিকে বিভাগের খবর