শনিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২১, ১১:৩৪ অপরাহ্ন

 কুষ্টিয়ায় প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে অবৈধ্যভাবে তৈরি হচ্ছ নসিমন-করিমন

নিজস্ব প্রতিবেদক: / ২৪৮ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : শনিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২১, ১১:৩৪ অপরাহ্ন

কুষ্টিয়ায় প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে গড়ে উঠেছে অবৈধ যান নসিমন-করিমন তৈরির কারখানা। এই কারখানায় দেশীয় লোহা-লক্কর ব্যবহার করে অবাধে তৈরি হচ্ছে নসিমন-করিমন। সরেজমিন ঘুরে জানা যায়, কুষ্টিয়া সদর উপজেলার অন্তর্গত বিত্তিপাড়া বাজার, এলাকায় কয়েকটি ওয়ার্কশপে দীর্ঘদিন ধরে তৈরি হচ্ছে নসিমন-করিমন, আলমসাধু আগলামন ও ট্রলিসহ অন্যান্য যানবাহন। মোটরযান আইন ও স্থানীয় প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙুলি দেখিয়ে অবাধে প্রস্তুত করা হচ্ছে জনজীবনের জন্য চরম হুমকি ও ঝুঁকিপূর্ণ যানবাহন। মোটরযান আইনে স্থানীয়ভাবে তৈরি এসব যানবাহনের কোনো বৈধতা নেই। লোহার এঙ্গেল ও অন্যান্য সামগ্রী ব্যবহারে চেসিসসহ তৈরিকৃত এ যানবাহন মারাত্মক ঝুঁকিপূর্ণ। এ যানবাহনের ব্রেক সিস্টেম ও ইঞ্জিনের গতি তাৎক্ষণিক কমানোর যান্ত্রিক পদ্ধতিও ত্রুটিপূর্ণ। সেচকাজে ব্যবহার্য ডিজেলচালিত শ্যালো মেশিন সংযুক্ত বেপরোয়া গতির এ যানবাহন অহরহ ঘটাচ্ছে দুর্ঘটনা। অপ্রাপ্তবয়স্ক কিংবা অদক্ষ চালকরাই এসব যানবাহনে যাত্রী পরিবহন, ইট, কাঠ, পাথর, বালু, রড-সিমেন্ট ও অন্যান্য মামলামালসহ সড়ক-মহাসড়ক দাপিয়ে বেড়াচ্ছে। দেড় থেকে আড়াই টন পর্যন্ত ধারণ ক্ষমতাসম্পন্ন এসব যানবাহনের চালকের লাইসেন্স কিংবা গাড়ি চালকের নেই কোনো দক্ষতা ও প্রশিক্ষণ।

কুষ্টিয়া সদর উপজেলার অন্তর্গত বিত্তিপাড়া বাজারে উজ্জলের ওয়ার্কশপে প্রতিমাসে ৫০ থেকে ৬০টি নসিমন-করিমন তৈরি হচ্ছে। উজ্জলের সাথে কথা হলে তিনি বলেন আমি নসিমন-করিমন তৈরি করি তিন বছর যাবত। উজ্জল আরো জানান, যানবাহন তৈরিতে সরকারি স্বীকৃতি না থাকলেও কৃষিপণ্য সরবরাহের সুবিধার্থে তিনি দীর্ঘ ৩-৪ বছর ধরে নছিমন-করিমন গাড়ি প্রস্তুত করে আসছি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর ....

এক ক্লিকে বিভাগের খবর