রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৩:১১ অপরাহ্ন

কুষ্টিয়ায় মিরপুরে ধর্ষন ও পর্ণোগ্রাফীর পৃথক মামলায় ২ আসামী আটক

নিজস্ব প্রতিবেদক / ১৬৮ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৩:১১ অপরাহ্ন

কুষ্টিয়ার মিরপুরে ধর্ষন ও পর্ণোগ্রাফীর পৃথক দুটি মামলায় ২জনকে আটক করেছে স্থানীয় থানা পুলিশ। আটককৃতরা হচ্ছে: মিরপুর থানার মাজিহাট হাজী পাড়া গ্রামের মৃত দাউদ হোসেনের ছেলে ধর্ষক নুরুজ্জামান ওরফে পলাশ (৩৭) ও পর্নোগ্রাফী মামলায় বারুইপাড়া ইউনিয়নের মির্জানগর গ্রামের সাব্দার আলীর ছেলে সেলিম রেজা (৩৫)। এরমধ্যে ধর্ষন মামলার আসামী নুরুজ্জামান ওরফে পলাশ কুষ্টিয়া জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তি জবানবন্দী দিয়েছে। শনিবার মিরপুর থানা পুলিশের পৃথক অভিযানে এ দুজনকে আটক করা হয়। সুত্র জানায়, সৌদি প্রবাসী স্ত্রীর সাথে নুরুজ্জামান পলাশের দীর্ঘদিন ধরে দৈহিক সম্পর্ক ছিল। দৈহিক মেলামেশার একপর্যায়ে প্রবাসীর ওই স্ত্রী অন্তসত্তা হয়ে পড়ে। পরবর্তীতে গত ১৫ অক্টোবর বিকেল ৫টায় ধর্ষক পলাশ তাকে পোড়াদহে ডেকে নিয়ে সন্তান নষ্ট করার একটি ঔষধ খাইয়ে দেয়।

এরপর পরের দিন রাত ১২টায় অতিরিক্ত রক্তপাতে গর্ভের সন্তানটি নষ্ট হয়ে যায়। এঘটনায় স্থানীয় থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন (সংশোধনী ২০০৩) এর ৯(১) তৎসহ ৩১৩ পেনাল ধারায় একটি মামলা দায়ের হয়, যার নং ১২, তারিখঃ ১৭/১০/২০২০ইং। অন্যদিকে উপজেলার বহলবাড়ীয়া মল্লিক পাড়ায় আয়ুব মন্ডলের মেয়ে শিরিনা খাতুন (৩৪) এর সাথে ১৯ বছর আগে একই গ্রামের রিজন আলী (৪০) এর বিয়ে হয়।

এবং সেখানে ১৮ বছরের এক মেয়ে ও ৬ বছর বয়সের এক পুত্র সন্তান আছে। ১৯ বছর ঘর-সংসার করার একপর্যায়ে বারুইপাড়া ইউনিয়নের মির্জানগর গ্রামের সাব্দার আলীর ছেলে সেলিম রেজা (৩৫) এর সাথে সম্প্রতি পরকিয়ায় জড়িয়ে পড়ে প্রথম স্বামী রিজন আলীকে ডিভোর্স দিয়ে প্রেমিক সেলিম রেজাকে বিয়ে করে। পরবর্তীতে স্বামী-স্ত্রীরুপে বসবাসকালে তাদের দৈহিক মেলামেশার দৃশ্যটি মোবাইল ফোনে দ্বিতীয় স্বামী সেলিম ধারণ করে স্ত্রীর আত্মীয় স্বজনদের সামাজিকভাবে হেয়-পতিপন্ন করার লক্ষে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়। ভিডিওটি দ্রুত সময়ের মধ্যে ভাইরাল হয়ে যায়। এর প্রতিবাদে শিরিনার ভাই ফয়সাল বাদী হয়ে মিরপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করে, যার নং ১১, তারিখঃ ১৭/১০/২০২০ইং, ধারা-২০১২ সালের পর্ণোগ্রাফি নিয়ন্ত্রন আইনের ৮(১)/৮(২)/৮(৩)। এব্যাপারে মিরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ আবুল কালামের সাথে আলাপ করলে পৃথক দুটি ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান আসামীদের আটক করে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

 

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর ....

এক ক্লিকে বিভাগের খবর