বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই ২০২২, ০৪:১১ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
শিরোনাম :
কুমারখালী উপজেলা ও পৌর বিএনপির প্রতীকী অনশন পালন কুষ্টিয়ায় পণ্যে পাটজাতদ্রব্য ব্যবহার না করার অপরাধে জরিমানা কিশোরগঞ্জে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে ২৫টি পরিবারের ৮৩টি বসতঘর পুড়ে ভস্মীভ’ত কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় বিএনপির প্রতিকী অনশন পালিত কুষ্টিয়ায় র‌্যাবের অভিযানে গাঁজাসহ ২ জন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার বিজ্ঞান শিক্ষার প্রসার ঘটিয়ে জনগনকে জনসম্পদে পরিনত করতে হবে : ব্যারিস্টার সেলিম আলতাফ জর্জ, এমপি ফতুল্লায় গার্মেন্টস শ্রমিকদের সড়ক অবরোধ পুলিশের লাঠিচার্জ, টিয়ারশেল নিক্ষেপ রাজনৈতিক ছত্রছায়ায় থাকায় তালিকা হচ্ছে না নিয়ন্ত্রণহীন অপরাধীরা সাংবাদিকদের মধ্যে আর কোনো বিভক্তি থাকবে না : রুহুল আমিন গাজী কুষ্টিয়ায় তিন দিনেও খোঁজ মেলেনি অপহৃত মাদ্রাসা ছাত্রের, ফোনে মুক্তিপণ দাবি

কুষ্টিয়া মেয়র গোল্ডকাপ টি-২০ ক্রিকেট লীগের সফল সমাপ্তি

নিজস্ব প্রতিবেদক / ৪২ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই ২০২২, ০৪:১১ অপরাহ্ন

২নং ওয়ার্ডকে হারিয়ে প্রথম আসরে চ্যাম্পিয়ন ৭নং ওয়ার্ড

 

লক্ষ্য ছিল জমকালো আয়োজনের মধ্য দিয়ে পর্দা নামবে কুষ্টিয়া মেয়র গোল্ডকাপ টি-২০ ক্রিকেট লীগের। কিন্তু করোনা মহামারির কারনে তা সম্ভব হয়নি। গতকাল শনিবার অনেকটা সাদামাটা আয়োজনের মধ্য দিয়েই লীগের পর্দা নামলেও তার প্রাপ্তি ছিলো অনেক। তারকা সমৃদ্ধ ২নং ওয়ার্ডকে ৭নং ওয়ার্ড মাত্র ২২ রানে পরাজিত করলেও গোটা লীগের প্রাপ্তি ছিলো অনেক। দীর্ঘ দিন পর ক্রীড়ামোদি দর্শক একটি ভালো ক্রিকেট উপভোগ করলেও গোটা লীগ থেকে যা অর্জিত হয়েছে তা কম কিসের। ১৭ডিসেম্বর শুরু হওয়া লীগের সমাপ্তি ঘটে শনিবার। কোন প্রকার প্রচার প্রচারণা ছাড়াই কুষ্টিয়া শহরের হাউজিং পৌর ক্রিকেট মাঠে দুপুর ২টায় অনুষ্ঠিত হয় ফাইনাল খেলা। ২ নং ও ৭নং ওয়ার্ডের খেলোয়াড় ও সমর্থকরা স্বাস্থ্যবিধি মেনেই হাজির হয় মাঠে। এরই মধ্যে পুরো মাঠজুড়ে উপস্থিত দর্শকরাও। টসে চিতে ২নং ওয়ার্ড ৭নং ওয়ার্ডকে প্রথমে ব্যাটিংয়ে আমন্ত্রন জানায়। তারা নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৫৮ রান করে। দলের পক্ষে রোহান সর্বোচ্চ ৪৪ রান করেন। জয়ের লক্ষে খেলতে নেমে ২নং ওয়ার্ড ১৯ ওভারে সব ক’টি উইকেট হারিয়ে ১৩৬ রান করতে সক্ষম হয়। ২নং ওয়ার্ডের পক্ষে জীবন সর্বোচ্চ ৭৬ রান করেন। বিজয়ি দলের শিমুল নেন ৫ উইকেট। খেলার ফলাফল ২২ রানের জয় নিয়ে কুষ্টিয়া পৌরসভার আয়োজনে প্রথম টি-২০ মেয়র গোল্ডকাপ ক্রিকেট লীগে চ্যাম্পিয়ন হবার স্বাদ পায় ৭নং ওয়ার্ড। তবে লীগের সমাপ্তি ঘটলেও ছিলনা কোন পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান। করোনা সংক্রমনের কারনে স্থগিত করা হয় পুরস্কার বিতরণী আনুষ্ঠানিকতা। অবশ্য পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে আনুষ্ঠানিকভাবে অনেকটা ঘটা করেই আয়োজন করা হবে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের। করোনার কারনে এই সফল লিগের ফাইনাল জমকালো আয়োজনে করতে না পারার আক্ষেপ থাকলেও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে খেলাটি ফাইনাল পর্যন্ত গড়াতে পারায় একই সাথে লিগ থেকে অনেক তরুন খেলোয়াড় উঠে আসায় পরিতৃপ্তির ঢেকুর তুলছে আয়োজক কমিটি। মেয়র গোল্ডকাপ টি-২০ ক্রিকেট লীগ আয়োজক কমিটির সভাপতি কুষ্টিয়া পৌরসভার মেয়র আনোয়ার আলী জানান কুষ্টিয়া পৌরসভা তথা আয়োজক কমিটির লক্ষ্য ছিল ছেলেরা মাঠমুখি হবে, মাদক থেকে দুরে থাকবে। একই সাথে এই লীগ থেকে অনেক তারকা খেলোয়াড় উঠে আসবে। শেষ পর্যন্ত লীগের সফল সমাপ্তির পর আমাদের প্রাপ্তি অনেক। বলা যায় প্রত্যাশার চেয়েও অনেক বেশি পেয়েছি। বিশেষ করে ২১টি ওয়ার্ড থেকে বিপুল পরিমান তরুন খেলোয়াড় উঠে এসেছে। তারা কুষ্টিয়া তথা বাংলাদেশ ক্রিকেটে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতে সক্ষম হবেন। এদের মধ্য থেকেই হাবিবুল বাশার সুমন, মিথুন, বিজয়ের মত ক্রিকেটার তৈরী হবে। আরেকটি প্রাপ্তি লীগের শুরু থেকে প্রচুর দর্শক প্রাণভরে উপভোগ করেছে। তারা উচ্ছৃঙ্খল নয়, শান্তিপূর্ণ পরিবেশে খেলা উপভোগ করেছেন। সব বয়সী মানুষ এমনকি নারীরাও মাঠে এসে উপভোগ করেছেন। তবে এত কিছুর পরও আপসোস থেকে গেছে। তা হলো সফল আয়োজন শেষে জমকালো আয়োজনে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা। সেটি সম্ভব হয়নি করোনা মহামারির কারনে। তবে আশা করছি এই বৈশি^ক দুর্যোগ থেকে মুক্তি পেলে সেই আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করতে পারব। এজন্য সকলকে স্বাস্থ্য বিধি মেনে করোনা মোকাবিলা করারও অনুরোধ জানান তিনি। একই সাথে লীগ আয়োজক কমিটির সকল সদস্য, ২১টি ওয়ার্ডের সকল কাউন্সিলর, পৌরসভার সকল কর্মকর্তা, অংশগ্রহনকারী খেলোয়াড় সর্বোপরি সকল দর্শক যারা এই গোটা লীগকে সাফল্যমন্ডিত করেছেন তাদের সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন কুষ্টিয়া পৌরসভার মেয়র ও লীগ কমিটির সভাপতি আনোয়ার আলী। লীগ আয়োজক কমিটির আহ্বায়ক পৌর কাউন্সিলর আনিচ কোরাইশী বলেন আমরা সার্থক এই কারনে লীগটি শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন করতে পেরেছি। আমরা যে লক্ষ্য নিয়ে লীগের আয়োজন করেছিলাম তার স্বার্থকতা হয়েছে। এই লীগ থেকে অসংখ্য খেলোয়াড় তৈরী হয়েছে। তবে ভবিষ্যতেও আমাদের এমন আয়োজন অব্যাহত থাকবে বলেও তিনি জানান। আয়োজক কমিটির যুগ্ম-আহ্বায়ক বিশিষ্ট ক্রীড়া সংগঠক পারভেজ আনোয়ার তনু মনে করেন অত্যন্ত শান্তিপূর্ণ পরিবেশে বিশাল এই আয়োজন নির্বিঘেœ সম্পন্ন হয়েছে। কোন প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। পৌরসভার সকল কাউন্সিলর, খেলোয়াড়, দর্শক সবার সহযোগিতায় লীগটি সফল ভাবে সম্পন্ন হয়েছে। সবচেয়ে বড় প্রাপ্তি লীগ থেকে অনেক তরুন খেলোয়াড় উঠে এসেছে। তারা একদিন দেশের ক্রিকেটে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতে সক্ষম হবে। শুধু এবারই নয়, ভবিষ্যতেও টি-২০ ক্রিকেটের এমন আয়োজন অব্যাহত থাকবে। তবে প্রত্যাশার চেয়েও এই লীগ থেকে আমাদের প্রাপ্তিটা হয়েছে অনেক বেশি। আয়োজক কমিটির সদস্য সচিব মাহমুদ রেজা চৌধুরী বুলবুল দাবী করেন আমাদের প্রত্যাশা ছিল লীগ থেকে কিছু খেলোয়াড় তৈরী হবে। সেই প্রত্যাশা পুরণ হয়েছে। এক কথায় প্রত্যাশার চেয়েও অনেক ভালো হয়েছে। প্রচুর খেলোয়াড় তৈরী হয়েছে। ভবিষ্যতেও আমাদের এমন আয়োজন অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি। ফাইনালে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কুষ্টিয়া পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী রবিউল ইসলাম, কুমারখালী পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী ওবায়দুর রহমান, কুষ্টিয়া পৌরসভার শহর পরিকল্পনাবিদ রানভীর আহমেদসহ উপস্থিত ছিলেন কুষ্টিয়া পৌরসভার সকল কাউন্সিলরবৃন্দ। আম্পায়ার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন মোস্তাফিজুর রহমান সবুজ ও রাজীব হাসান রাসেল। গত ১৭ডিসেম্বর প্রথমবারের মত কুষ্টিয়া পৌরসভার আয়োজনে ২১টি ওয়ার্ডের সমন্বয়ে লীগ শুরু হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর ....

এক ক্লিকে বিভাগের খবর