রবিবার, ১১ এপ্রিল ২০২১, ১১:৪৯ অপরাহ্ন

আজ দোল পূর্ণিমা; কুষ্টিয়ায় লালন সাঁইয়ের উৎসব হচ্ছে না

নিজস্ব প্রতিবেদক: / ১২ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : রবিবার, ১১ এপ্রিল ২০২১, ১১:৪৯ অপরাহ্ন

আজ দৌল প‚র্ণিমা। প্রায় ২শ বছর ধরে কুষ্টিয়ার ছেঁউড়িয়ায় মরমি সাধক ফকির লালন সাঁইয়ের আখবাড়িতে এদিনে হয়ে আসছে দোল উৎসব। করোনার কারণে এবারের এই স্মরণোৎসব হচ্ছে না।
দেশে করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব বেড়ে যাওয়ার গত ২৮ মার্চ এ অনুষ্ঠান বাতিল ঘোষণা করেন লালন একাডেমির সভাপতি ও কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক সাইদুল ইসলাম।
করোনা বিবেচনায় বাউল-ফকিররা এ সিদ্ধান্ত মেনে নিলেও তাদের ধর্মীয় রেওয়াজ পালনে ছোট্ট করে হলেও সাধুসঙ্গ করার দাবি ছিলো।
কুষ্টিয়া শহরতলীর ছেঁউড়িয়া গ্রামে কালীগঙ্গা নদীর পাড়ে ফকির লালন সাইয়ের আখড়াবাড়ি। উপমহাদেশের কিংবদন্তি বাউল সাধক লালন জীবদ্দশাতে ভক্ত অনুসারীদের নিয়ে এখানে থাকতেন। গানের মাধ্যমে তিনি তার অহিংস মানবদর্শন প্রচার করতেন। জনশ্রুতি আছে, দৌল প‚র্ণিমা উৎসবটিও লালন নিজেই পালন করতেন। প্রতিবছর দৌল প‚র্ণিমার প‚র্ণ-চন্দ্র তিথিতে তিনি ভক্ত-অনুসারীদের নিয়ে জোৎসা গায়ে মাখতেন। লালন একাডেমীর আহবায়ক কমিটির সদস্য সেলিম হক বলেন, লালন জীবদ্দশাতে তার অনুসারীদের জন্য বাল্যসেবা, প‚র্ণসেবা, অধিবাস ও রাখালসেবা নামে খাবারের আয়োজন করতেন। থাকতো নিজস্ব ধর্মীয় কিছু রীতি। ফকির লালনের মৃত্যুর পরও সেই রেওয়াজ চলে আসছে। সাথে হয় তিনদিনের মেলা ও রাষ্ট্রীয় অনুষ্ঠানমালা। লালনের জীবদ্দশা থেকে চলে আসা দৌলপ‚র্ণিমা উৎসবকে লালন স্মরণোৎসবও বলে থাকেন তার ভক্ত ও অনুসারীরা। প্রায় ২০০ বছর ধরে প‚র্ণ চাঁদের দৌল প‚র্ণিমায় এই স্বরণোৎসব হয়ে আসছে।
সেলিম হক আরো বলেন, করোনা মহামারী শুরুর পর থেকে আধ্যাতিক সাধক ফকির লালন সাঁই’র আখড়াবাড়ি বন্ধ ছিলো। গত ২৯ অক্টোবর সীমিত পরিসরে এটি খুলে দেয়া হয়।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর ....

এক ক্লিকে বিভাগের খবর