বৃহস্পতিবার, ১৫ এপ্রিল ২০২১, ০৮:০৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
শিরোনাম :
কুষ্টিয়ার মিরপুরে জিকে ক্যানেল থেকে অজ্ঞাত ব্যক্তির মরদেহ উদ্ধার বেগম জিয়ার সুস্থ্যতা ও রোগমুক্তি কামনা করে কুষ্টিয়া জেলা বিএনপির দোয়া দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সুস্থতা ও দীর্ঘায়ূ কামনায় কুমারখালী থানা-পৌর বিএনপি ও অঙ্গসংগঠন সমূহের উদ্যোগে দোয়া মাহফিল খান খালিদ হোসেনের মৃত্যুতে মেহেদী রুমীর শোক পবিত্র মাহে রমজানের চাঁদ দেখা গেছে, কাল থেকে রোজা কুমারখালীতে প্রতিবন্ধী যুবতীকে গণধর্ষণ , গ্রেফতার ২ করোনা আক্রান্ত লালনশিল্পী ফরিদা পারভীন হাসপাতালে করোনায় সংগীত পরিচালক ফরিদ আহমেদের মৃত্যু মতিঝিল ও ওয়ারীর সব থানায় ‘এলএমজি চৌকি’ সব রেকর্ড ভেঙে ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু ৮৩

সন্ত্রাসীদের কাছে তথ্য পাচারের অভিযোগে কুষ্টিয়ার সেই পুলিশ এসআইকে প্রত্যাহার

নিজস্ব প্রতিবেদক : / ৩০ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১৫ এপ্রিল ২০২১, ০৮:০৯ পূর্বাহ্ন

জাতীয় জরুরি সেবা নম্বর ৯৯৯-এ ফোন করে পুলিশকে সন্ত্রাসীদের তথ্য দিয়ে সেই সন্ত্রাসীদের আক্রমণে গুরুতার আহত হবার ঘটনায় সন্ত্রাসীদের কাছে তথ্য পচারের অভিযোগে অভিযুক্ত পুলিশ উপপরিদর্শক (এসআই) জাহাঙ্গীর হোসেনকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। তাকে গত রাতেই কুষ্টিয়া পুলিশ লাইনে ক্লোজ করা হয়েছে। তিনি জেলার ভেড়ামারা উপজেলার কুচিয়ামোড়া পুলিশ ক্যাম্পে কর্মরত ছিলেন। কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মোস্তাফিজুর রহমান এ তথ্য জানান। তিনি বলেন অভিযোগের সত্যতা যাচাই-বাছাই চলছে। সেটি এখনও প্রমাণিত না হলেও অভিযোগ ওঠায় জেলা পুলিশ এই পদক্ষেপ নিয়েছে। কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা উপজেলার জুনিয়াদাহ এলাকার ফয়জুল্লাপুর গ্রামে আসাদুল হক গত শুক্রবার সকালে তার বাড়ির পাশে পদ্মা নদীতে গুলির পেয়ে শব্দ পেয়ে বিষয়টি জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯-এ ফোন দিয়ে জানান। ঐ সেবা থেকে তার সঙ্গে ভেড়ামারা থানার দায়িত্বরত কর্মকর্তার (ডিউটি অফিসার) সাথে যোগাযোগ করিয়ে দেওয়া হয়। ঘটনা¯’লটি ছিল ভেড়ামারা থানার কুচিয়ামোড়া পুলিশ ক্যাম্পের আওতায় হবার কারনে ঐ দায়িত্বরত কর্মকর্তা ঐ যুবকের নাম ও মুঠোফোন নম্বর কুচিয়ামোড়া পুলিশ ক্যাম্পে উপপরিদর্শক (এসআই) জাহাঙ্গীর হোসেনকে দেন। এর ঘন্টা তিনেক পর, বেলা ১টার দিকে এসআই জাহাঙ্গীর হোসেন তাকে ফোন দেন এবং বলেন ‘তুই ফাজলামি করিস, আমি খবর নিয়ে দেখেছি এলাকায় কোনো ঘটনা ঘটেনি।’ ঐ পুলিশ কর্মকর্তার ফোনের ২০/২৫ মিনিটের মধ্যে ৮ জন যুবক তার বাসায় প্রবেশ করে তাকে গালাগালি করে। এদের মধ্যে ৪ জন তাকে আক্রমণ করে। ১ জন রামদা দিয়ে তাকে এলোপাথারী কোপায়। সন্ত্রাসীরা তাকে বলেছিল তোর এতবড় সাহস তুই পুলিশকে খবর দিস। আসাদুলের চিৎকার শুনে পাশেই মাঠে কাজ করা কয়েকজন কৃষক ঘটনা¯’লে ছুটে আসে এবং তাকে উদ্ধার করে। দুর্বৃত্তরা তাকে পিস্তল দিয়ে ভয় দেখিয়ে পালিয়ে যায়। ঐ দিনই আহত আসাদুল কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি হন। শনিবার তিনি ঘটনার বিবরণসহ ৭ জনের নাম উল্লেখ করে জেলা পুলিশ সুপারের কাছে লিখিত অভিযোগ দেন। রবিবার সকালে ঐ অভিযোগটি ভেড়ামারা থানায় মামলা হিসেবে নথিভুক্ত হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর ....

এক ক্লিকে বিভাগের খবর