বৃহস্পতিবার, ১৫ এপ্রিল ২০২১, ০৯:০৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
শিরোনাম :
কুষ্টিয়ার মিরপুরে জিকে ক্যানেল থেকে অজ্ঞাত ব্যক্তির মরদেহ উদ্ধার বেগম জিয়ার সুস্থ্যতা ও রোগমুক্তি কামনা করে কুষ্টিয়া জেলা বিএনপির দোয়া দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সুস্থতা ও দীর্ঘায়ূ কামনায় কুমারখালী থানা-পৌর বিএনপি ও অঙ্গসংগঠন সমূহের উদ্যোগে দোয়া মাহফিল খান খালিদ হোসেনের মৃত্যুতে মেহেদী রুমীর শোক পবিত্র মাহে রমজানের চাঁদ দেখা গেছে, কাল থেকে রোজা কুমারখালীতে প্রতিবন্ধী যুবতীকে গণধর্ষণ , গ্রেফতার ২ করোনা আক্রান্ত লালনশিল্পী ফরিদা পারভীন হাসপাতালে করোনায় সংগীত পরিচালক ফরিদ আহমেদের মৃত্যু মতিঝিল ও ওয়ারীর সব থানায় ‘এলএমজি চৌকি’ সব রেকর্ড ভেঙে ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু ৮৩

ঠাকুরগাঁওয়ে এই বছর ভালবাসা দিবসে ক্রেতার দেখা তেমন মেলেনি

ঠাকুরগাঁও সংবাদদাতা / ২৮ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১৫ এপ্রিল ২০২১, ০৯:০৩ পূর্বাহ্ন

ঠাকুরগাঁওয়ে এই বছর (১৪ই ফেব্রুয়ারি) ভালোবাসা দিবসে পৌর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। নির্বাচনের উত্তাপে ভালোবাসা দিবস উদযাপনের পরিচিত দৃশ্য চোখে পড়েনি। ফুলের দোকানে তরুণ-তরুণীদের ভিড় ছিলো না। ক্ষতিতে পড়েছে ফুল ব্যবসায়ীরা। 

ঠাকুরগাঁও শহরের চৌরাস্তায় চারটি ফুলের দোকান রয়েছে। এর মধ্যে রোববার (১৪ ফেব্রুয়ারি) একটি বন্ধ ছিলো। বাকি তিনটি দোকানে ফুল সাজিয়ে বসে ছিলেন দোকানি। তবে ক্রেতার দেখা তেমন মেলেনি। চৌরাস্তার ফুল ব্যবসায়ী মিজানুর রহমান বলেন, নির্দিষ্ট কিছু দিবসে তাদের ভালো ব্যবসা হয়। এ বছরে মহামারিতে পড়ে ব্যবসায় মন্দা গেছে। করোনার সংকট কমায় ১৪ ফেব্রুয়ারি নিয়ে তাদের প্রত্যাশা ছিলো। কিন্তু আবার তাদের নিরাশ হতে হলো।  তিনি বলেন, ভালোবাসা দিবসে সাধারণত গোলাপ ফুলের চাহিদা থাকে। গত বছর তিনি দেড় লাখ টাকায় ১৫ হাজার গোলাপ কেনেন। বিক্রি করেন ৩ লাখ টাকায়। এই বছর আরও বেশি গোলাপ রাখতে চেয়েছিলেন। কিন্তু পৌর নির্বাচনের কারণে ১০ হাজার ফুল উঠান বিক্রির জন্য। তবে এর বেশিরভাগ বিক্রি হয়নি। পাশের দোকানি আমির হোসেন বলেন, এ বছর বিক্রি অনেক কম। গত বছর তিনি ১৪ থেকে ১৫ হাজার টাকার ফুল কেনেন বিক্রির জন্যে। এ বছর কেনেন ৫ হাজার টাকার। সেটার অধিকাংশই বিক্রি হয়নি। ফুল সজ্জা দোকানের মালিক ফুল বাবু বলেন, এবার বেচাকেনা অনেক কম। সেটা আমরা আগেই আঁচ করতে পেরেছিলাম। তাই ফুল কম উঠিয়েছি। তবুও রেহাই হলো না। যেখানে গত বছর প্রতি দোকানদার এক থেকে দেড় লাখ টাকা করে ব্যবসা করেছি। সেখানে এবার সবার মিলে লাখ টাকা লোকসান হয়েছে।

জি/হিমেল


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর ....

এক ক্লিকে বিভাগের খবর