বৃহস্পতিবার, ০৪ মার্চ ২০২১, ০৯:৩৭ অপরাহ্ন

সমালোচনাকারীদের দিকে তাকিয়ে ভ্যাকসিন ভেংচি কেটেছে : তথ্যমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক: / ২১ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ০৪ মার্চ ২০২১, ০৯:৩৭ অপরাহ্ন

করোনার ভ্যাকসিন নিয়ে যারা সমালোচনা করেছিলেন তাদের দিকে তাকিয়ে ভ্যাকসিন ভেংচি কেটেছে বলে বৃহস্পতিবার মন্তব্য করেছেন তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।
তিনি বলেন, ‘এখন ভ্যাকসিন দেয়ার জন্য যে পরিমাণ উৎসাহ দেখা যাচ্ছে, এই ভ্যাকসিন নিয়ে যারা সমালোচনা করেছিলেন তাদের দিকে তাকিয়ে ভ্যাকসিনটা ভেংচি কেটেছে।

সচিবালয়ে বাংলাদেশের গ্লোব বায়োটেকের গবেষণাগারে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন আবিষ্কারক দলের প্রধান দুই বৈজ্ঞানিক কাঁকন নাগ এবং নাজনীন সুলতানার সাথে শুভেচ্ছা বিনিময়ের সময় তিনি এ কথা বলেন।

হাছান মাহমুদ বলেন, ‘অনেকেই আশঙ্কা করে বলেছিল আমরা সঠিক সময়ে ভ্যাকসিন সংগ্রহ করতে পারব না। সরকার ঘোষণা দিয়েছিল জানুয়ারি মাসের মধ্যে ভ্যাকসিন আসবে। সেই সময়েই ভ্যাকসিন দেশে এসেছে। যখন ভ্যাকসিন আসলো তখন অপপ্রচার শুরু করা হলো, এই ভ্যাকসিন জনগণ নেবে না, এটার ওপর তাদের আস্থা নেই। পাশাপাশি প্রথমে এমপি-মন্ত্রীদের নেয়ার কথা বলা হলো।’

বায়োটেকের ভ্যাকসিন বঙ্গভ্যাক্স সম্পর্কে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ভ্যাকসিন নিয়ে অনেক কথা হয়েছে বাংলাদেশে। প্রধানমন্ত্রীর আহ্বানে ও নিজেরা স্বপ্রণোদিত হয়ে গবেষণা করেছেন এবং অত্যন্ত অল্প সময়ের মধ্যে এটি আবিষ্কার করতে সক্ষম হয়েছেন। মুজিববর্ষের মধ্যেই এই ভ্যাকসিন পরিপূর্ণভাবে জনগণের জন্য উন্মুক্ত করতে পারবে বলে আশা করছেন তারা। আমিও আশা করছি এই ভ্যাকসিন খুব সহসাই সব প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে জনগণকে দিতে সক্ষম হবো। আমি এটা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি। সরকার এক্ষেত্রে সবদিক থেকে সহায়তা করবে।

করোনা ভ্যাকসিন ‘বঙ্গভ্যাক্স’র বৈজ্ঞানিক ড. কাঁকন নাগ ও ড. নাজনীন সুলতানাকে অভিনন্দন জানিয়ে তিনি বলেন, ‘তারা একটি মৌলিক গবেষণা করে বঙ্গভ্যাক্স নামে একটি করোনা ভ্যাকসিন আবিষ্কার করেছেন। যেটি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) লিস্টেট করেছে, যা বাংলাদেশ মেডিকেল কাউন্সিলের চূড়ান্ত অনুমোদনের অপেক্ষায় আছে।’

‘পৃথিবীতে খুব বেশি দেশ এই ভ্যাকসিন আবিষ্কার করতে পারেনি৷ মাত্র হাতেগোণা কয়েকটি দেশ এই ভ্যাকসিন আবিষ্কার করেছে, তার মধ্যে বাংলাদেশ একটি। এজন্য আমি খুব গর্বিত। কাঁকন নাগ ও নাজনীন সুলতানার এই সাফল্যে আমিসহ সারা বাংলাদেশ গর্বিত,’ বলেন তিনি

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, এটা একটা সিঙ্গেল ডোজ ভ্যাকসিন৷ বিশ্বে আবিষ্কৃত বেশির ভাগই হচ্ছে ডাবল ডোজ ভ্যাকসিন। বঙ্গভ্যাক্স ভ্যাকসিন একবার নিলেই হয়ে যাবে। এটি একটি বড় দিক এই ভ্যাকসিনের ক্ষেত্রে। আমি অধির আগ্রহে অপেক্ষা করছি কখন আমরা এই বঙ্গভ্যাক্স আমরা আমাদের জনগণের ওপর সফলভাবে প্রয়োগ করতে সক্ষম হবো। সেই দিনের জন্য অপেক্ষা করছি। সেই সময় আমরা প্রয়োজনে অন্যদেশকেও সহায়তা করতে পারব।

সূত্র : ইউএনবি


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর ....

এক ক্লিকে বিভাগের খবর