রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:০৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
শিরোনাম :
কুষ্টিয়ায় করোনায় দুই জনের মৃত্যু শনাক্ত ২৯ অতি লোভে সর্বনাশ নিষিদ্ধ থ্রি-হুইলার দাপিয়ে বেড়াচ্ছে ২২ মহাসড়ক বেড়েই চলেছে নিত্যপণ্যের দাম, দিশেহারা সাধারণ মানুষ খালেদা জিয়ার মুক্তিসহ ৩ দফা দাবিতে ধাপে ধাপে আন্দোলনের ঘোষনা দেবে বিএনপি ছাত্ররাজনীতিকে জ্ঞান এবং মূল্যবোধের মডেল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে হবে : সেতুমন্ত্রী ‘ব্যক্তিগত তথ্য সুরক্ষা আইন’ বিরুদ্ধ মত নিয়ন্ত্রণের হাতিয়ার হতে পারে : টিআইবি কুষ্টিয়া দৌলতপুরের সেই ‘ভন্ড শামীম অবশেষে গ্রেপ্তার চলন্ত ট্রেন এ পুত্র সন্তানের জন্ম দিলেন এক প্রসূতি জাতীয় পার্টির মহাসচিব জাফর উল­াহ খান চৌধুরী লাহরীর শয্যা পাশে (কাজী জাফর) কেন্দ্রীয় কমিটির নেতৃবৃন্দ

টুকুনের লাল চুড়ি

মেহেরুন ইসলাম / ৩২৮ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:০৬ পূর্বাহ্ন

কিছুদিন পরেই বৈশাখী মেলা। মেলায় খুব মজা হয়। নাগোরদোলা, নৌকা বাইচ, ঘোড়াদৌড় মেলার আনন্দ আরো বাড়িয়ে দেয়। প্রতিবছর মেলাটা বটতলার মাঠেই বসে। টুকুনদের বাড়ি থেকে পাঁচ মিনিটের পথ। কিন্তু এবার সেখানে আর হলো না। কারণ বটতলার মাঠটা ছোট। এবার মেলার আয়োজন বেশি তাই দোকানপাটও বেশি বসবে। সেজন্য মেলাটা নদীর ওপারেই বসে। মেলা এলে টুকুনের নাওয়া-খাওয়ার কথা মনেই থাকে না। দৌড়ে দৌড়ে মেলায় যায়। কিন্তু এবার তা আর হলো না। নদীর ওপারে মেলা বসায় টুকুন একা যেতে পারে না। দু’দিন হয়ে গেল মেলা বসেছে কিন্তু টুকুনের যাওয়া হয়নি। কে নিয়ে যাবে তাকে? তার বাবা অসুস্থ, নিজেই ঠিকমতো চলতে পারে না। আর তার মা মহিলা মানুষ অত মানুষের ভিতর যেতে রাজি নয়। টুকুন মনের দুঃখে বারান্দায় বসে কাঁদতে থাকে। হঠাৎ কারো ছোঁয়ায় থমকে ওঠে। পিছন ফিরতেই খুশিতে লাফিয়ে ওঠে। ভাইজান তুমি আইসো, আমারে মেলায় নিয়ে যাও না। টুকুনের ভাই বাদল অন্যের বাড়িতে কামলা খাটে। দিনে একবার বাড়িতে আসে, তাও অল্প সময়ের জন্য। বাদল টুকুনকে খুব ভালোবাসে। সাধ্য না থাকায় বোনের সব আহ্লাদ পূরণ করতে পারে না। তবুও যতটা পারে চেষ্টা করে। কি ভাইজান চুপ করে আছ যে, মেলায় নিবা না আমারে? বাদল চিন্তায় পড়ে গেল, কারণ পকেটে তেমন টাকাও নাই। টুকুনতো মেলায় হরেক জিনিস দেখে বায়না ধরবে। না দিলেই কান্না জুড়বে। অবশেষে ভেবেচিন্তে বললো, যেতে পারি বুড়ি। তবে একটা শর্ত আছে। ভাইজান আমি তোমার সব শর্ত মানবো, তবুও আমারে একটু নিয়ে চলো। আচ্ছা চল, তবে বেশি কিছু কেনার বায়না ধরবি না বুঝলি? হ ভাইজান, আমারে শুধৃ লাল চুড়ি কিনে দিলেই হবে। টুকুন আর বাদল মেলায় যায়। সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত মেলায় ঘোরে দুই ভাইবোন। টুকুনতো খুব খুশি, লাল চুড়িও কিনেছে। চুড়ি দেখছে আর হাসছে সে। সন্ধ্যা হলেও অন্ধকার হয়নি চারিপাশ। মেলার লাল নীল বাতিতে চকচক করছে সব। টুকুন আর বাদল বাড়ি ফেরার উদ্দেশ্যে নৌকায় চড়ে। টুকুন চুড়ি নিয়েই খেলছিল। খেলতে খেলতে হঠাৎ হাত ফসকে চুড়িগুলো নদীতে পড়ে যায়। তখন নদীতে জোয়ার ছিল, চুড়িগুলো কচুরীপনার উপর পড়েছিল। টুকুন চিৎকার দিয়ে কাঁদতে কাঁদতে বললো, ভাইজান ওই আমার চুড়ি পড়ে গেছে, এনে দাও না, দাও না,,, বাদলের পকেটে আর টাকাও নেই যে আবার কিনে দেবে। তাই বোনের কান্না থামাতে নদীতে ঝাঁপ দিলো।কচুরীপনাও ধরতে পারলো, চুড়িগুলোও হাতে পেল। কিন্তু বাদল আর উঠতে পারলো না, ধীরে ধীরে ডুবে গেল নদীর গভীরে।
মেহেরুন ইসলাম
সিনিয়র স্টাফ নার্স
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর ....

এক ক্লিকে বিভাগের খবর