বৃহস্পতিবার, ১৫ এপ্রিল ২০২১, ০৮:৫০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
শিরোনাম :
কুষ্টিয়ার মিরপুরে জিকে ক্যানেল থেকে অজ্ঞাত ব্যক্তির মরদেহ উদ্ধার বেগম জিয়ার সুস্থ্যতা ও রোগমুক্তি কামনা করে কুষ্টিয়া জেলা বিএনপির দোয়া দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সুস্থতা ও দীর্ঘায়ূ কামনায় কুমারখালী থানা-পৌর বিএনপি ও অঙ্গসংগঠন সমূহের উদ্যোগে দোয়া মাহফিল খান খালিদ হোসেনের মৃত্যুতে মেহেদী রুমীর শোক পবিত্র মাহে রমজানের চাঁদ দেখা গেছে, কাল থেকে রোজা কুমারখালীতে প্রতিবন্ধী যুবতীকে গণধর্ষণ , গ্রেফতার ২ করোনা আক্রান্ত লালনশিল্পী ফরিদা পারভীন হাসপাতালে করোনায় সংগীত পরিচালক ফরিদ আহমেদের মৃত্যু মতিঝিল ও ওয়ারীর সব থানায় ‘এলএমজি চৌকি’ সব রেকর্ড ভেঙে ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু ৮৩

করোনা আতঙ্কের পর কুষ্টিয়া হাসপাতালে রোগীর উপচে পড়া ভীড়

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ / ১১০ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১৫ এপ্রিল ২০২১, ০৮:৫০ পূর্বাহ্ন

করোনা ভাইরাসের কারণে স্বাভাবিক জীবন ছন্দ পতন ঘটেছিল কিন্তু হঠাৎ কিছুদিন আগে থেকে দেখছি হাসপাতালে করোনার ভয় উধাও। চিরচেনা সেই কুষ্টিয়া হাসপাতালে রোগীর ভীড় দেখা যাচ্ছে। বৃহস্পতিবার (১৯/১১/২০২০) সকাল সাড়ে এগারোটায় কুষ্টিয়া সদর হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায় শিশু ওয়ার্ডের সামনে বারান্দায় উপচে পড়া ভীড়। পা ফেলার জায়গা নেই। সেখানে পুরুষ মেডিসিন ওয়ার্ডের রোগী ভর্তি রয়েছে। ওয়ার্ডে বেড না পেয়ে বারান্দায় চিকিৎসা নিচ্ছে রোগীরা। কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ তাপস কুমার সরকার জানান ২৫০ বেডের হাসপাতালে আজ সকাল পর্যন্ত ভর্তি রোগী রয়েছে ৪৫৭ জন। এর বেশিরভাগ রোগী মেডিসিনের রোগী। এপ্রিল/মে মাসে রোগী ছিল ২শ এর কাছাকাছি। এপ্রিল/মে মাসে করোনা আতঙ্কে রাস্তাঘাটে কমেছে ছিল যানবাহন। লোকসমাগম কমে গিয়েছিল সর্বত্র কিন্তু জুলাই মাস থেকে আবারো বেড়েছে যানবাহন ও লোকসমাগম। মিছিল মিটিং প্রশাসনিক ভাবে নিসিদ্ধ থাকলেও মানছে না রাজনৈতিক কিছু নেতাকর্মী।
এদিকে বহির্বিভাগে নেই নিত্যদিনের ভিড়। আগে হাসপাতালে একটি সিট পেতে ধরনা দিতে হয়েছে দিনের পর দিন। কিন্তু এখন অধিকাংশ ওয়ার্ড প্রায় ফাঁকা। (২৬ মার্চ) বেলা সাড়ে ১২ টার দিকে যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে।

হাসপাতালের মেডিসিন ওয়ার্ডের সিনিয়র এক নার্স জানান, এই হাসপাতালে ২৫০ শয্যার জায়গায় দ্বিগুণ রোগী ভর্তি থাকে। চিকিৎসা দিতে হিমশিম লেগে যেতো। কিন্তু মাঝে তিন মাস তেমন কোন রোগী ছিল না। এখন আবার রোগীর চাপ বেড়েছে। তিনি আরো বলেন, আমরা এখন করোনা আতঙ্কে রয়েছি।

এ বিষয়ে কুষ্টিয়া ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডাঃ মোসাঃ নূরুন-নাহার বেগম জানান, আজ মোট ১২টা করোনা রোগী ভর্তি রয়েছে। গত বুধবার ছিল ৪ টা। করোনা জন্য ১২ টা ডাক্তার এবং ৪৮ না সেবিকা পেয়েছি। ৪র্থ শ্রেণীর কর্মচারী সংকটে ও গ্লাপস সংকটে রয়েছি। করোনা আতঙ্কে হাসপাতালে এপ্রিল/মে মাসে রোগী কম থাকলেও আবার নভেম্বর রোগীর সংখ্যা বাড়েছে। আজ প্রায় ৫শ রোগী ভর্তি রয়েছে। যেভাবে করোনা রোগী বাড়ছে এতে আমরাও আতঙ্কিত।

কুষ্টিয়া জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ এইচ এম আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, গত এক সপ্তাহ জুড়ে করোনা রোগী একটু বেড়েছে তবে আরো বেশি বাড়ার আশঙ্কা রয়েছে। গত বুধবার করোনা রোগী সনাক্ত হয়েছে ৭ জন। আজ বৃহস্পতিবার (২৯/১২/২০২০) পর্যন্ত মোট করোনা সনাক্ত হয়েছে ৩ হাজার ৫০৯জন। হাসপাতালের এখন করোনা রোগী চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৪ জন। তিনি আরো বলেন, করোনার টিকা না বেড় হওয়া পর্যন্ত সাবধানে থাকতে হবে। মাস্ক ব্যবহার করতে হবে, নিরাপদ দূরত্বে বজায় রাখতে হবে। আমরা মাস্ক ব্যবহার না করাই জেল জরিমানা করছি। তবে নিজে থেকে সচেতন হওয়া উচিত। জেনারেল হাসপাতালসহ সকল উপজেলা হাসপাতালে বেড প্রস্তুত রাখা হয়েছে। আলাদা আইসুলেশন ওয়ার্ড, সেবিকা, রোগী পরিবহনের জন্য আলাদা অ্যাম্বুলেন্স প্রস্তুত রয়েছে।

কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসক আসলাম হোসেনের মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, মাক্স ছাড়া কোন গেদারিং হলেই সেখানে অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর ....

এক ক্লিকে বিভাগের খবর