বুধবার, ২৩ জুন ২০২১, ১১:২৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
শিরোনাম :
ঘুষ দিয়ে জমি রেজিস্ট্রি করতে হলো ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেলকে! রওশন আরা খাতুনের মৃত্যুতে মেহেদী রুমীর শোক কুষ্টিয়ায় উর্দ্ধমুখী সংক্রমনে ২৪ঘন্টায় আক্রান্ত ১২২, মৃত্যু-৫, জেলায় মোট মৃত্যু ২৬২জন ডেডিকেটেড করোনা হাসপাতালের কার্যক্রম শুরু কুষ্টিয়ায় করোনায় আরো চার জনের মৃত্যু এসডিজি বাস্তবায়নে বাংলাদেশ বিশ্বের শীর্ষ ৩ দেশের একটি : প্রধানমন্ত্রী বিশ্বের বড় বড় পন্ডিতরা টিকার নামে মুলা দেখিয়ে যাচ্ছে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইউপি নির্বাচনে ভোট কলঙ্কের আরেকটি অধ্যায়ের যোগ হলো : পীর সাহেব চরমোনাই লকডাউনের নামে সরকার প্রতারণা করছে : মির্জা ফখরুল উন্নত চিকিৎসার জন্য খালেদা জিয়াকে দ্রুত বিদেশে পাঠানোর দাবি বিএনপির তিন দেশে নারী পাচারে ১০টি নাম ব্যবহার করতো নদী

কুষ্টিয়া পোস্ট অফিসের সেবা থেকে বঞ্চিত সাধারণ মানুষ

নিজস্ব প্রতিবেদক / ১৩৪ বার নিউজটি পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : বুধবার, ২৩ জুন ২০২১, ১১:২৬ অপরাহ্ন

কুষ্টিয়া পোস্ট অফিসের সেবার বেহাল দশা চাকরি পরীক্ষার পরে পৌঁছালো এডমিট কার্ড ১৪-৯-২০২০ তারিখের পরীক্ষার কার্ড কুষ্টিয়া পোস্ট অফিসে এসে পৌঁছায় কিন্তু এডমিট কার্ড টি ২৪-১০-২০ তারিখে প্রাপকের বাড়িতে গিয়ে পৌঁছে। দীর্ঘ ৩০ দিন পরে প্রাপক এডমিট কার্ডটি হাতে পাই।ততো দিনে তার সরকারি চাকরিতে জয়েন করার সময় অভার হয়ে যা। এই বিষয় টা ভুক্তভোগীরা সাংবাদিকদের কে খুলে বলে।

সাংবাদিকরা এই বিষয় টা জানতে যাই পোস্ট মাস্টার (১ম শ্রেণী)আবুল কালাম আজাদ এর সাথে দেখা করতে গেলে দেখা মেলে না।পোস্ট অফিসে কর্ম চারিদের কাছে আবুল কালাম আজাদ সার এর নাম্বার কথা বললে তারা বলেন আবুল কালাম আজাদ স্যার এর নাম্বার আমাদের কাছে নেই। ১.৩০ মিনিট থেকে ৩.২০ মিনিট অপেক্ষা করার পর অবশেষে তার সাথে দেখা মেলে ।আবুল কালাম আজাদ বলেন, তার বেলা ১২টা থেকে বেলা ৩ টা প্রজোন তো বিশ্রাম এর সময়। এই সময়ের মাঝে তার সাথে কনো ভাবে যোগাযোগ করা যাই না।

২ ঘন্টা অপেক্ষা করার পর তার সাথে দেখা মেলে।আবুল কালাম আজাদ সার সাথে এডমিট কার্ড এর বিষয় তাকে খুলে বললে সে বলে এই বিষয় আমার কিছু করার নেই। আবুল কালাম আজাদ বলেন, আপনার এই বিষয়টি কমলাপুর পোস্ট মাস্টার সে সবথেকে ভালো জানে আমরা তো তার কাছে ১৫-৯-২০২০ তারিখে চিঠি পৌছে দেয়েছি ।সে হয়তো চিঠি দিতে দেরি করেছে। কমলাপুর পোস্টমাস্টার এর কাছে জানতে গেলে তিনি বলেন, কুষ্টিয়া পোস্ট অফিস থেকে তাকে চিঠি দেয়া হয়েছে ২৩-১০-২০২০ তারিখে। এখানে আমার কিছু করার নাই, এই বিষয়টি আপনি কুষ্টিয়া পোস্ট সহকারি মাস্টারের আবুল কালাম আজাদ স্যার কাছ থেকে জানতে পারবেন কেন এত দেরিতে চিঠি প্রদান করেছে।

এখানে সবাই সবার দায় এড়িয়ে চলে যাচ্ছে এভাবে যদি চলতে থাকে সাধারণ জনগণ চিঠি দিয়ে আস্থা পাবে না। সে চিঠিটি সেই ঠিকানায় পৌঁছাবে কিনা। এভাবেই চলছে কুষ্টিয়া পোস্ট অফিসের কাজকর্ম।

ভুক্তভোগীদের একটাই কথা আমাদের সাথে যেমনটা হয়েছে আর জান অন্য কারো সাথে এমন টা নাহয়। আমরা এর বিচার চাই। আমাদের তো কোন ভুল ছিল না তাহলে কেন করল তার সাথে এমন টা পোস্ট অফিস কর্মচারীবৃন্দ যদি এভাবে মানুষকে হয়রানি করতে থাকে সাধারণ জনগণ কোথায় চিঠিপত্র আদান প্রদান করবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর ....

এক ক্লিকে বিভাগের খবর